কাগজী লেবুর চাষ পদ্ধতি | Link World
Story Image

কাগজী লেবুর চাষ পদ্ধতি

কাগজী লেবু চাষ এর সময়ঃ
বর্ষাকাল কাগজী লেবু চাষের উপযুক্ত সময়।

লেবুর পরিচিতিঃ
লেবু পৃথিবীর সব জাতির জন্য অন্যতম সহায়ক সবজি/ফল। তাই আমাদের দেশেও প্রায় সব অঞ্চলেই এখন কমবেশি লেবু চাষ হচ্ছে। লেবুর স্বাদ বৃদ্ধির ভূমিকা যেমন রয়েছে তেমনি রয়েছে বিশেষ খাদ্যগুণ। বিশেষ করে লেবুকে ‘সি’ ভিটামিনের ডিপো বলা হয়ে থাকে। ছোট বড় সবার জন্য লেবু এক আশ্চর্য গুণসম্পন্ন সবজি এবং ভেষজ। আমাদের দেশে শতকরা ৯১ জন লোক ভিটামিন ’সি’ এর অভাবে ভুগছেন। একজন প্রাপ্ত বয়স্ক লোকের দৈনিক গড়ে ৩০ মিলিগ্রাম ভিটামিন ’সি’ খাওয়া দরকার। ভিটামিন ’সি’ সমৃদ্ধ ফলের মধ্যে লেবুই একমাত্র ফল যা সারা বছর কম বেশি পাওয়া যায়।

✓ লেবুর ভেষজ গুণঃ
লেবুর রস মধু বা আদা বা লবণ এর সাথে মিশিয়ে পান করলে ঠাণ্ডা ও সর্দি কাশি উপশম হয়।

✓ লেবু চাষে উপযুক্ত জমি ও মাটি নির্বাচনঃ
হালকা দোআঁশ ও নিকাশ সম্পন্ন মধ্যম অম্লীয় মাটিতে লেবু ভাল হয়।

✓ লেবুর জাত পরিচিতিঃ

*‌ বারি লেবু-১ (এলাচী লেবু):
ঘ্রাণ এর প্রধান বৈশিষ্ট্য। গাছ আকারে বড়। পাতা বড় ও প্রশস্ত। পরিচর্যা পেলে গাছ বছরে দু’বার ফল দেয়। জুলাই-আগস্ট মাসে ফল খাওয়ার উপযুক্ত হয়। পূর্ণবয়স্ক গাছ ১৫০ টি পর্যন্ত ফল দিয়ে থাকে। আকারে বড়, ডিম্বাকৃতি এবং প্রতিটি ফলের গড় ওজন ১৯৫ থেকে ২৬০ গ্রাম। এলাচী লেবুর খোসাও খাওয়া যায়।

বারি লেবু-২ঃ
মধ্যম আকৃতির ও ঝোপের মতো গাছ। সারা বছর ফল দেয়। ফল গোলাকার, মধ্যম ওজনের। ত্বক মসৃণ এবং বীজের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে কম। এই লেবু সারা দেশেই চাষাবাদের উপযোগী।

‌বারি লেবু-৩ঃ
একটি দেরীতে হওয়া (নাবি) জাত বারি লেবু-৩। গাছ ও পাতা ছোট আকৃতির। ফল গোলাকার ও ছোট। ত্বক খুবই মসৃণ, খোসা পাতলা এবং বীজের সংখ্যা ১৮-২২টি। রসের পরিমাণ খুব বেশি (৩৭.৭%)। সেপ্টেম্বর- অক্টোবর মাসে ফল খাওয়ার উপযুক্ত হয়। নিয়মিত খাবার, সেচ ও পরিচর্যা পেলে বছরে দু’বার ফল পাওয়া যায়। এটি সারা দেশেই চাষাবাদের জন্য উপযোগী।


√√ থাই সিডলেস এবং চায়না-৩ঃ
সিডলেস উচ্চ ফলনশীল জাতের বারো মাসী লেবু। বর্তমানে বাংলাদেশে এই লেবু ব্যাপক চাষ হচ্ছে। প্রায় সব ধরনের মাটিতে এই লেবু চাষ সম্ভব। এই লেবুর কয়েকটি আলাদা বৈশিষ্ট্য হলোঃ

(১) চারা রোপণের ৭/৮ মাসের মধ্যেই ফলন পাওয়া যায়।
(২) যৌবনপ্রাপ্ত বয়সে একেকটি গাছ থেকে বছরে গড়ে ১০০০/১৫০০ টি লেবু পাওয়া যায়।
(৩) এই লেবুতে কোনো বীচি থাকে না।
(৪) লেবুতে প্রচুর রস এবং সুগন্ধি আছে।
(৫) মাঝারি আকারের এবং বাজারদর খুব ভালো।

✓ চারা রোপণঃ
গুটি কলম ও কাটিং তৈরি করে মধ্য বৈশাখ থেকে মধ্য আশ্বিন মাসে ২.৫ মিটার দূরে দূরে রোপণ করা হয়। সেচের ব্যবস্থা থাকলে বারো মাস‌ই লেবু গাছ রোপন করা যায়।

Recent Comments
Please login to leave comment on posts